https://ratdin.news
শেকড়ের খবর সবার আগে...

পরীক্ষার সময় মেলা বন্ধের দাবিতে রংপুরে মানববন্ধন

কোমলমতি শিক্ষার্থীদের পরীক্ষাকালীন রংপুর পুলিশ লাইন্স স্কুল এন্ড কলেজ সংলগ্ন মাঠে কোন প্রকার মেলা না করার দাবিতে সচেতন অভিভাবক ও নাগরিক সমাজ মানববন্ধন-সমাবেশ করেছে।

সোমবার, ৪ নভেম্বর সকালে রংপুর প্রেসক্লাব চত্বরে মানববন্ধন-সমাবেশ হয়।

শ্রমিক অধিকার আন্দোলনের আহবায়ক ও রাজনীতিবিদ পলাশ কান্তি নাগের সভাপতিত্বে সমাবেশে বক্তব্য রাখেন সেক্টরস কমান্ডার ফোরামের রংপুর বিভাগীয় সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা মোজাফফর হোসেন চাঁদ, উদীচি শিল্পী গোষ্ঠী রংপুর জেলা সংসদের সভাপতি অধ্যাপক মলয় কিশোর ভট্রাচার্য, মুক্তিযোদ্ধা আব্দুর রহিম, মুক্তিযোদ্ধা আব্দুর রহিম আউলিয়া ও প্রজন্ম একাত্তর কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য দেবদাস ঘোষ দেবু

এতে আরও বক্তব্য রাখেন, রংপুর পদাতিকের সাংগঠনিক সম্পাদক নাসির উদ্দিন সুমন, শ্রমিক অধিকার আন্দোলনের সদস্য সচিব সুভাষ রায়, শ্রমিক নেতা রেদওয়ান ফেরদৌস,সবুজ রায়,আব্দুল জব্বার, নিপীড়ণ বিরোধী নারীমে র সদস্য সানজিদা আক্তার,শিক্ষানবীশ আইনজীবী স্বপন রায়,মোবাইল ইউজার এ্যাসোসিয়েশন এর আহবায়ক সালাউদ্দিন বাবু, দুরন্ত বাংলা কালচারাল একাডেমির প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি গোবিন্দ চন্দ্র দাস,লালবাগ রেলওয়ে বস্তি সংগ্রাম কমিটির সভাপতি আবু তালেব, সাংবাদিক সাইফুল্যা খাঁন, শিক্ষার্থী বিশাল, রাহাত।

সমাবেশে নেতৃবৃন্দ বলেন, নারী পুলিশ কল্যান সমিতির সহযোগীতায় মন্তা ডেকোরেটর ইভেন্ট ম্যানেজমেন্ট এর আয়োজনে আগামী ১০ নভেম্বর’১৯ ইং হতে পুলিশ লাইন্স স্কুল সংলগ্ন মাঠে বাণিজ্য মেলা অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা রয়েছে। সে লক্ষ্যে আয়োজক কর্তৃপক্ষ মাঠের প্রায় অর্ধেক অংশে বেষ্টনী তৈরী করে ষ্টল নির্মাণসহ আনুষঙ্গিক আয়োজন প্রায় সম্পন্ন করেছে।

গত ২৮ অক্টোবর রংপুরের পুলিশ সুপার বরাবর পরীক্ষাকালীন সময়ে মেলা না করার জন্য আমরা স্মারকলিপি প্রদান করি। কিন্তু জেলা পুলিশ প্রশাসন সচেতন অভিভাবক ও নাগরিকদের মতামতকে উপেক্ষা করে মেলা অনুষ্ঠানে অনড়।

যে সময়ে এই মেলা অনুষ্ঠানের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে সে সময়টি মোটেও বিবেচনা প্রসূত হয়নি। কারণ শুধু ভেন্যু হিসেবে পুলিশ লাইন্স স্কুল এন্ড কলেজের শিক্ষার্থীরাই ক্ষতিগ্রস্থ হবে না, আশপাশের সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরাই ক্ষতিগ্রস্ত হবে।

পুলিশ লাইন্স স্কুল এন্ড কলেজ এর আশপাশে নগরীর বেশ কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ শিক্ষা প্রতিষ্ঠান রয়েছে। এরমধ্যে সরকারী বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়, রংপুর জিলা স্কুল, ভকেশনাল স্কুল এন্ড কলেজ, রংপুর উচ্চ বিদ্যালয়, কৈলাশরন্জন উচ্চ বিদ্যালয়, শিশু নিকেতন, রংপুর সরকারী কলেজ উলেখযোগ্য।

২ নভেম্বর হতে জেএসসি শুরু হয়েছে, ১৭ নভেম্বর হতে পিএসসি পরীক্ষা একযোগে শুরু হতে যাচ্ছে। এছাড়াও বিদ্যালয়সমূহের সমাপনী পরীক্ষা ২০ ডিসেম্বরের মধ্যে সম্পন্ন করার জন্য শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের নির্দেশনা রয়েছে।

এ অবস্থায় বাণিজ্য মেলা অনুষ্ঠিত হলে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের নিয়মিত ক্লাস ব্যাহত হওয়ার পাশাপাশি  সার্বিকভাবেই পরীক্ষার প্রস্তুতির বিঘ্ন ঘটবে। যা কোনভাবেই কাম্য নয়। কোমলমতি শিক্ষার্থীদের লেখাপড়া বিঘ্ন করে এ ধরণের আয়োজন কোন সচেতন নাগরিক কিংবা অভিভাবক মেনে নিতে পারে না।

নেতৃবৃন্দ বলেন, পরীক্ষা পরবর্তী সময়ে সুন্দর ও সুষ্ঠু পরিবেশে গঠনমূলক আয়োজনে মেলা হলে আমাদের কোন আপত্তি নেই। তারা কোমলমতি শিক্ষার্থীদের লেখাপড়ার স্বার্থে বর্তমান সময়ে মেলা অনুষ্ঠানের সিদ্ধান্ত বাতিলের বিষয়ে পুলিশ সুপারের কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহনের দাবি জানান।

অন্যথায় পরীক্ষাকালীন সময়ে বাণিজ্য মেলা অনুষ্ঠিত হলে এর বিরুদ্ধে আরো কঠোর কর্মসূচি পালন করা হবে বলে নেতৃবৃন্দ জানান।

এনএইচ/রাতদিন

ভালো লাগলে লাইক দিন, শেয়ার করুন।

মন্তব্যসমূহ বন্ধ করা হয়েছে