পার্বতীপুরে বড়ই পারতে গিয়ে ডুবে মরলেন লন্ড্রী মালিক

দিনাজপুরের পার্বতীপুর উপজেলার শহরতলীর হলদীবাড়ীতে পুকুরের পানিতে পড়ে এক লন্ড্রি মালিকের মৃত্যু হয়েছে। তিনি দোকানের পাশের একটি পুকুরপাড়ে বড়ই পাড়তে গিয়েছিলেন।

বৃহস্পতিবার, ১৭ মার্চ রাত আনুমানিক সাড়ে নয়টায় পার্বতীপুরের পলাশবাড়ী ইউনিয়ন পরিষদের  হলদীবাড়ী এলাকার রাজমিস্ত্রী সাফি’র বাড়ির পুকুর থেকে তার মরদেহ উদ্ধার করা হয়।

মৃত ওই লন্ড্রি মালিকের নাম শ্যামল দাস। তার বয়স আনুমানিক ৪৫ বছর। তিনি পার্বতীপুর পৌরসভা এলাকার ধুপিপাড়া মহল্লার মৃত শংকর দাসের পুত্র।

জানা গেছে, পার্বতীপুর রেলওয়ে জংশনের অদুরে হলদীবাড়ী রেল গেট বাজারের সুমন ডেকোরেটরের বারান্দায় দোকান বসিয়ে লন্ড্রির কাজ করতেন শ্যামল দাস। প্রতিদিনের মতো বৃহস্পতিবারও তিনি লন্ড্রির দোকানে কাজ করেন। বিকেলে দোকান খোলা রেখে হলদীবাড়ী এলাকার রাজমিস্ত্রী সাফির বাড়ির পুকুরের পাশের বড়ই গাছ থেকে বড়ই পাড়তে যান।

এরপর আর দোকানে ফেরেন নি তিনি । রাত আনুমানিক সাড়ে নয়টায় তাঁর মৃত দেহ পুকুরের পানিতে ভাসতে দেখে ঘটনাটি পুলিশকে জানানো হয়। রাত দশটার দিকে পার্বতীপুর মডেল থানা পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে মৃত দেহ উদ্ধার করে।

এ সময় ঘটনাস্থলে পার্বতীপুরের পলাশবাড়ী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোফাখ্খারুল ইসলাম ফারুকসহ ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য আব্দুল করিম শেখ ও মহিলা সদস্য মাহিয়া খাতুন উপস্থিত ছিলেন।

পার্বতীপুর মডেল থানার এসআই জসীম উদ্দিন ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, মৃতদেহ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য দিনাজপুর মর্গে পাঠানো হয়েছে এবং এ ব্যাপারে থানায় একটি ইউডি মামলা দায়ের করা হয়েছে।

সাথে থাকুন...