বুড়িমারী কমিউটার ট্রেন আর রংপুর-দিনাজপুর যাচ্ছে না, ভোগান্তিতে মানুষ

লালমনিরহাটের পাটগ্রাম উপজেলার বুড়িমারী থেকে কমিউটার ট্রেনটির চলাচল গত ১ মার্চ থেকে সংক্ষিপ্ত করায় চরম ভোগান্তিতে পড়েছে যাত্রীরা। জেলার আর চার উপজেলার মত পাটগ্রাম উপজেলার শিক্ষার্থী, চাকুরিজীবি, জনসাধারণ ও বুড়িমারী স্থলবন্দরের ব্যবসায়ীরা পড়েছে চরম ভোগান্তিতে। গুরুত্বপূর্ণ এ ট্রেনটির চলাচলের সিডিউল/সময়সূচী পূর্বের নিয়মে রাখার দাবি জানিয়েছেন রেল যাত্রীরা।

লালমনিরহাট রেলওয়ে বিভাগ সূত্রে জানা গেছে , দিনাজপুর জেলার পার্বতীপুর থেকে কমিউটার ট্রেনটি প্রতিদিন ভোর ৫টা ৫০ মিনিটে ছেড়ে রংপুর, লালমনিরহাট হয়ে বুড়িমারী স্থলবন্দর পৌঁছাতো সকাল ১০ টা ২৫ মিনিটে। সেখানে ২০ মিনিট বিরতি দিয়ে সকাল ১০ টা ৪৫ মিনিটে  পূণরায় বুড়িমারী, লালমনিরহাট, রংপুর হয়ে দিনাজপুরের পার্বতীপুর বিকেল সাড়ে ৩ টায় পৌঁছাতো।

সম্প্রতি রেল বিভাগ বুড়িমারী কমিউটার ট্রেনটির চলাচল সংক্ষিপ্ত করে। ১ মার্চ থেকে দিনাজপুর পার্বতীপুর, রংপুর চলাচল বন্ধ করে দিয়ে শুধুমাত্র লালমনিরহাট-বুড়িমারী স্থলবন্দর রেল স্টেশন পর্যন্ত চলাচল করছে।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, এ কমিউটার ট্রেনটির চলাচল সংক্ষিপ্ত করায় রংপুর-দিনাজপুরের যাত্রীরা লালমনিরহাট জেলার বিভিন্ন উপজেলায় যাতায়াতে ও চিকিৎসায় সমস্যার সম্মুখীন হচ্ছেন। বিশেষ করে জেলার পাটগ্রাম, হাতীবান্ধা, কালীগঞ্জ, আদিতমারী উপজেলা ও লালমনিরহাট সদর উপজেলার শিক্ষার্থীরা এ কমিউটার ট্রেনে দিনাজপুর হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (হাবিপ্রবি), রংপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল, বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়, কারমাইকেল কলেজসহ বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে যাতায়াত করত।

খুলনা, রাজশাহী, যশোরের যাত্রীরা/রোগী ভারতের চেন্নাই, শিলিগুড়ি ও অন্যান্য শহরে চিকিৎসা নিতে ও নিজ এলাকায় ফিরে যেতে বুড়িমারী কমিউটার ট্রেনটি ব্যবহার করত। অপরদিকে বুড়িমারী স্থলবন্দরে রংপুর বিভাগের বিভিন্ন জেলার ব্যবসায়ীরা যাতায়াতের পাশাপাশি প্রতিদিন কয়েক হাজার যাত্রী এ ট্রেনটিতে চলাচল করত।

ট্রেনটি বন্ধ হওয়ায় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ব্যাপক সমালোচনার তৈরি হয়েছে।

পাটগ্রাম উপজেলার বাসিন্দা ও দিনাজপুর হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (হাবিপ্রবি) অর্থনীতি বিভাগের শিক্ষার্থী মেহরাব আল কিবরিয়া বলেন, আমরা ট্রেনে শিক্ষার্থীরা কম খরচে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে যথা সময়ে যাতায়াত করতাম।  এখন ট্রেনটি সংক্ষিপ্ত চলাচল করায় আমরা চরম দূর্ভোগে পড়েছি।

লালমনিরহাট জেলা প্রশাসক আবু জাফর বলেন, ‘বুড়িমারী কমিউটার ট্রেনটি রেলওয়ে বিভাগ বন্ধ করেছে। এতে শিক্ষার্থী, ব্যবসায়ী ও সাধারণ লোকজন ভোগান্তিতে পড়েছে। বিষয়টি রেলওয়ে বিভাগের যথাযথ কর্তৃপক্ষকে জানানো হবে।’

সাথে থাকুন...