https://ratdin.news
শেকড়ের খবর সবার আগে...

ভয়ঙ্কর থেকে অতি ভয়ঙ্কর ঘূর্ণিঝড়ে পরিণত হয়েছে ‘বুলবুল’, উপকূল অতিক্রম করবে শনিবার

ভয়ঙ্কর থেকে অতি ভয়ঙ্কর ঘূর্ণিঝড়ে পরিণত হয়েছে ‘বুলবুল’। সেই সাথে এটি পশ্চিমবঙ্গ এবং বাংলাদেশের উপকূলের আরও কাছে চলে এসেছে। বৃহস্পতিবার, ৭ নভেম্বর রাতেই গভীর নিম্নচাপ থেকে ভয়ঙ্কর ঘূর্ণিঝড় (সিভিয়ার সাইক্লোনিক স্টর্ম)-এ পরিণত হয়েছিল ‘বুলবুল’। এখন সেটি ‘ভেরি সিভিয়ার সাইক্লোনিক স্টর্ম’ বা অতি ভয়ঙ্কর ঘূর্ণিঝড়ে পরিণত হয়েছে বলে জানিয়েছেন আবহাওয়াবিদরা।

আজ শুক্রবার সন্ধ্যে সাড়ে ৭টার দিকে আবহাওয়া অধিদফতরের উপ-পরিচালক আয়েশা খাতুন এক সংবাদ ব্রিফিংয়ে জানান, আগামীকাল শনিবার সন্ধ্যা নাগাদ বাংলাদেশের খুলনা তথা সুন্দরবন উপকূলে ‘বুলবুল’ আঘাত হানতে পারে। ঘূর্ণিঝড় কেন্দ্রের ৭৪ কিলোমিটার এলাকায় বাতাসের গতি ঘণ্টায় সর্বোচ্চ ১৪০ কিলোমিটার। ঘূর্ণিঝড়টি আঘাত করলে ৫ থেকে ৭ ফুট উচ্চতায় জলোচ্ছ্বাস হতে পারে।

ঢাকা ও ভারতের আলিপুর আবহাওয়া দফতর সূত্রে জানা গেছে, শুক্রবার দুপুর তিনটে নাগাদ ঘূর্ণিঝড়ের অবস্থান ছিলো চট্টগ্রাম সমুদ্রবন্দর থেকে ৬৯৫ কিলোমিটার দক্ষিণ-পশ্চিমে ও পশ্চিমবঙ্গের সাগরদ্বীপ থেকে প্রায় ৪৫০ কিলোমিটার দূরে।

ভয়ঙ্কর ঘূর্ণিঝড় ‘বুলবুল’-এর প্রভাব পড়তে শুরু করেছে উপকূলবর্তী জেলাগুলিতে। শুক্রবার সকাল থেকেই শুরু হয়েছে ঝিরঝিরে বৃষ্টি। সঙ্গে মেঘলা আকাশ। উপকূলীয় এলাকায় বইছে দমকা হাওয়া।

আলিপুর আবহাওয়া দফতরের বিজ্ঞানীদের মতে, আগামী ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে ভারতের সাগর দ্বীপ এবং বাংলাদেশের খেপুপাড়ার মধ্যে তা আছড়ে পড়ার সম্ভাবনা রয়েছে। কিন্তু ঠিক কোন জায়গায় আছড়ে পড়বে বুলবুল, সে ব্যাপারে এখনও নিশ্চিত হতে পারছেন না আবহাওয়াবিদরা।

কারণ, মাঝেমধ্যেই গতিপথ পরিবর্তন হচ্ছে বুলবুলের। তবে আবহাওয়াবিদদের অনুমান, সুন্দরবনের উপর দিয়ে এই ঘূর্ণিঝড় বয়ে যাবে। সাগরদ্বীপ থেকে বাংলাদেশের খেপুপাড়া- এর মধ্যেই কোনও একটি জায়গায় স্থলভাগে আছড়ে পড়ার সম্ভাবনা রয়েছে বুলবুলের। তবে অভিমুখ এখনও পর্যন্ত খেপুপাড়ার দিকেই ঝুঁকে রয়েছে বলে আবহাওয়া বিজ্ঞানীদের মত।

ভারতের আলিপুর আবহাওয়া দফতর জানিয়েছে, শনিবার সকাল থেকে ঝোড়ো হাওয়া বইতে শুরু করবে। ধীরে ধীরে সেই গতিবেগ আরও বাড়বে। আর বুলবুল যখন আগামী ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে স্থলভাগে আছড়ে পড়বে, তখন তার গতিবেগ থাকবে ঘণ্টায় ১০০ কিলোমিটারের আশেপাশে। রবিবার সকাল থেকে ৮০ থেকে ৯০ কিলোমিটার বেগে ঝোড়ো হাওয়া বইবে।

উপকূলবর্তী এলাকায় বুলবুলের প্রভাব আরও বেশি হবে। ইতিমধ্যেই দমকা হাওয়া বইতে শুরু করেছে। বেড়েছে সমুদ্রে ঢেউয়ের উচ্চতাও। শনিবার সকাল থেকে উপকূলে হাওয়ার গতিবেগ থাকতে পারে ঘণ্টায় ৫০ থেকে ৬০ কিলোমিটার।

জেএম/রাতদিন

ভালো লাগলে লাইক দিন, শেয়ার করুন।

মন্তব্যসমূহ বন্ধ করা হয়েছে