রংপুরের দুই ঔষধ কোম্পানীতে অভিযান, জরিমানা-ফ্যাক্টরি বন্ধের নির্দেশ

রংপুরে দুটি ঔষধ কোম্পানীতে অভিযান চালিয়েছে মেট্রোপলিটন পুলিশের গোয়েন্দা বিভাগ (ডিবি)। নানা অনিয়মে ওই দুই কোম্পানীর জরিমানা করা হয়। কোম্পানী দুটির প্রায় ১৫লক্ষ টাকার ওষুধ জব্দ করা হয়। উপরন্তু ত্রুটি সংশোধন না করা পর্যন্ত উৎপাদন কার্যক্রম বন্ধ রাখার নির্দেশ দেয়া হয়।

আজ সোমবার, ২৫ অক্টোবর দুপুরে রংপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনার সাজ্জাদ হোসেন বিষয়টি নিশ্চত করেন।

তিনি জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে নগরীর বাহার কাছনায় অবস্থিত ‘বি সান্ত ল্যাবরেটরিজ ইউনানী ফ্যাক্টরি’তে অভিযান চালানো হয়। প্রতিষ্ঠানের পরিবেশের ছাড়পত্র না থাকা, ঔষধ প্রস্তুতকারী শ্রমিকদের হ্যান্ড গ্লাভস ও মাস্ক ব্যবহার না করা, ফায়ার সার্ভিসের ছাড়পত্র না থাকা, ঔষধ তৈরির কাঁচামাল সঠিকভাবে সংরক্ষন না করা এরুপ একাধিক কারনে প্রতিষ্ঠানের মালিক রাশেদুল আনাম প্রামানিক (৩০)কে ৫ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। অনাদায়ে ১৫ দিনের বিনাশ্রম কারাদন্ডাদেশ এবং ত্রুটি সংশোধন না করা অবধি ফ্যাক্টরিটির সকল কার্যক্রম ও উৎপাদন বন্ধ রাখার আদেশ দেন।

ঔষধ প্রশাসন অধিদপ্তর, জেলা কার্যালয় রংপুর এর সহকারী পরিচালক তৌহিদুল ইসলামের উপস্থিতিতে রংপুর জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট কাশপিয়া তাসরিন ভ্রাম্যমান আদালতের মাধ্যমে এই দন্ডাদেশ দেন।

এসময় নগরের নিউ শালবনে এলাকায় ‘দি মৌভাষা ইসলামিয়া ঔষধ ফ্যাক্টরি’তে অভিযান পরিচালনা করা হয়। অভিযান পরিচালনাকালে প্রতিষ্ঠানের পরিবেশের ছাড়পত্র না থাকা, ঔষধ প্রস্তুতকারী শ্রমিকদের হ্যান্ড গ্লাভস ও মাস্ক ব্যবহার না করা,
ঔষধ তৈরির কাঁচামাল সঠিকভাবে সংরক্ষন না করা, কাচামালে মেয়া না থাকা এরকম কিছু গুরুতর অপরাধে প্রতিষ্ঠানের মালিক আলহাজ এমদাদুল ইসলাম (৬৫)কে ৭ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়

জরিমানা অনাদায়ে ১৫ দিনের বিনাশ্রম কারাদন্ডাদেশ এবং ত্রুটি সংশোধন না করা অবধি ফ্যাক্টরিটির সকল কার্যক্রম ও উৎপাদন বন্ধ রাখার আদেশ দেন আদালত।

জেএম/রাতদিন

লাইক দিয়ে সাথে থাকুন