https://ratdin.news
শেকড়ের খবর সবার আগে...

সৈয়দপুরে ফাজিল পরীক্ষায় প্রক্সি দিতে গিয়ে ধরা

নীলফামারীর সৈয়দপুরে চলতি ফাজিল (পাশ) দ্বিতীয় বর্ষ ফাইনাল পরীক্ষায় প্রক্সি দেয়ার অপরাধে এক ভূয়া পরীক্ষার্থীর দন্ডাদেশ হয়েছে। ভ্রাম্যমাণ আদালত ওই পরীক্ষার্থীকে এক বছরের কারাদন্ড ও পাঁচশত টাকা অর্থদন্ড দিয়েছেন।

বুধবার, ২ অক্টোবর ভ্রাম্যমান আদালতের বিচারক নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও সহকারি কমিশনার (ভূমি) পরিমল কুমার সরকার ওই দন্ডাদেশ দেন।

ভ্রাম্যমান আদালত সূত্রে জানা গেছে, ইসলামী আরবী বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে ফাজিল চূড়ান্ত পরীক্ষা গত ১২ সেপ্টেম্বর থেকে শুরু হয়েছে। নীলফামারীর সৈয়দপুর উপজেলার সোনাখুলী মুন্সীপাড়া কামিল মাদ্রাসা কেন্দ্রে এ পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হচ্ছে। বুধবার ছিল ফাজিল দ্বিতীয় বর্ষের ইংরেজী বিষয়ের পরীক্ষা। আর এ পরীক্ষায় পরীক্ষার্থী মো. সুমন ইসলামের পরিব পরীক্ষা দিচ্ছিলেন মো. রাকিবুল ইসলাম। ওই সময়ে পরীক্ষা কেন্দ্র পরিদর্শনে যান নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও সহকারি কমিশনার (ভূমি) পরিমল কুমার সরকার।

এ সময় পরীক্ষা কেন্দ্রের কক্ষ পরিদর্শনের গিয়ে এক পরীক্ষার্থীর আচরণে সন্দেহ হয় তাঁর। পরে তাকে (পরীক্ষার্থী) জিজ্ঞাসাবাদে তিনি মো. সুমন ইসলামের পরিবর্তনে পরীক্ষায় অংশ নেয়ার কথা স্বীকার করেন।

এ সময় পরীক্ষায় প্রক্সি দেয়ার অপরাধে ভূয়া পরীক্ষার্থী মো. রাকিবুল ইসলামকে পাবলিক পরীক্ষাসমূহ (অপরাধ) আইন, ১৯৮০ এর ৩ (ক) ধারায় এক বছরের বিনাশ্রম কারাদন্ড ও পাঁচশত টাকা জরিমানা ভ্রাম্যমান আদালত। ভ্রাম্যমান আদালতের বিচারক নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও সৈয়দপুর উপজেলা সহকারি কমিশনার (ভূমি) পরিমল কুমার সরকার ওই দন্ডাদেশ দেন।

দন্ডপ্রাপ্ত ভূয়া পরীক্ষার্থী মো. রাকিবুল ইসলামের বাড়ি নীলফামারী সদরের লক্ষীচাপ ইউনিয়নের ময়মনসিংহপাড়া এবং তাঁর বাবার নাম মো. মোফাজ্জল হোসেন।

সৈয়দপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) জানান, ভ্রাম্যমান আদালতে দন্ডপ্রাপ্ত ভূয়া পরীক্ষার্থী রাকিবুল ইসলামকে গতকালই নীলফামারী কারাগাওে পাঠানো হয়েছে।

এনএইচ/রাতদিন

ভালো লাগলে লাইক দিন, শেয়ার করুন।

মন্তব্যসমূহ বন্ধ করা হয়েছে