বেরোবিতে ১১ দফা দাবিতে অফিসার্স অ্যাসোসিয়েশনের কর্মবিরতি

বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের  (বেরোবি) অফিসার্স অ্যাসোসিয়েশন সোমবার, ১১ মার্চ থেকে অনির্দিষ্টকালের জন্য কর্মবিরতি শুরু করেছে।

উপাচার্যের পিএস আমিনুর রহমানকে অব্যহতি, ডেপুটি রেজিস্ট্রার গোলাম মোস্তফাকে সংস্থাপন শাখা থেকে অন্যত্র বদলিসহ ১১ দাবিতে এ ধর্মঘট চলছে।

সোমবার দুপুর দিকে রেজিস্ট্রার দপ্তরের সামনে এ কর্মবিরতি শুরু হয়।

কর্মকর্তাদের অন্য দাবিগুলোর মধ্যে রয়েছে, পদোন্নতি/আপগ্রেডেশনপ্রাপ্ত কর্মকর্তাদের স্থায়ীকরণ সম্পন্ন, যেসব কর্মকর্তার পদোন্নতি/আপগ্রেডেশন বোর্ড হয়নি তাদের বোর্ড দ্রুত সম্পন্ন করা। যেসব কর্মকর্তার পদবী বদল করা হয়েছে তাদেরকে স্বপদে ফিরিয়ে আনা, সরকারি নিয়মে পুলিশ ভেরিফিকেশন ফরম প্রস্তুত করা।

প্রতিটি দপ্তরকে নিজস্ব কাজ বুঝিয়ে দিয়ে প্রমাসনিক বিকেন্দ্রিকরণ নিশ্চিত করা, প্রশাসনিক ভবনে কক্ষ বরাদ্দে গঠিত কমিটিতে জ্যেষ্ঠতার নীতি অবলম্বন, ৫৮ কর্মকর্তা-কর্মচারীর বকেয়া বেতন পরিশোধ, হয়রানীমূলক বদলীকৃত কর্মকর্তাদের নিজ নিজ দপ্তরে পুনর্বহাল, রেজিস্ট্রার অফিসের স্বাতন্ত্রতা ও গোপনীয়তা রক্ষা করা এবং রেজিস্ট্রার কার্যালয়ে অধীনস্থ কর্মকর্তার নজরদারী বন্ধ করা। 

জানতে চাইলে উপাচার্যের পিএস আমিনুর রহমান বলেন, ‘অফিসার্স অ্যাসোসিয়েশন সুনির্দিষ্ট কারণ ছাড়াই উদ্দেশ্য প্রণোদিতভাবে আমার অপসারণ দাবিতে কর্মবিরতি শুরু করেছে। তারা সুবিধা ও নিয়োগ বাণিজ্য করতে না পাওয়ায় এমনটা করছে।’

রেজিস্ট্রার আবু হেনা মোস্তফা কামাল বলেন, ‘এ বিষয়ে উপাচার্যের সাথে কথা হয়েছে। আমরা আরও সময় চেয়েছিলাম কিন্তু তারা সময় দেয়নি।’

এইচএ/রাতদিন

লাইক দিয়ে সাথে থাকুন