কুড়িগ্রামে মুদি দোকানি হত্যা, ৮ জনের যাবজ্জীবন কারাদন্ড

গত ২০০৪ সালে কুড়িগ্রামের চিলমারী উপজেলায় মুদি দোকানি নূরুন্নবী মিয়াকে (২০) হত্যা করা হয়। এই হত্যার দায়ে আট আসামিকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত।

সোমবার, ৯ মে দুপুরে সিনিয়র জেলা ও দায়রা জজ মো. আব্দুল মান্নান আসামিদের উপস্থিতিতে এই রায় ঘোষণা করেন। রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী এস এম আব্রাহাম লিংকন এই তথ্য জানিয়েছেন।

দণ্ডপ্রাপ্তরা হলেন, রাশেদ মিয়া, মোসলেম উদ্দিন, তছলিম উদ্দিন, মকবুল হোসেন, নুরু মিয়া, মোনাল মিয়া ওরফে মোন্নাফ. আব্দুল কাদের ও মিন্টু। তাদের বাড়ি কুড়িগ্রামের চিলমারী উপজেলার রাণীগঞ্জ ইউনিয়নের কাঁচকোল এলাকার সড়কটারী গ্রামে। নূরুন্নবী মিয়া কাঁচকোল এলাকার মোখলেছুর রহমানের ছেলে।

মামলা সূত্রে জানা গেছে, ২০০৪ সালের ২২ জানুয়ারি রাতে নূরুন্নবীর সঙ্গে তার মুদির দোকানের ভেতর ঘুমিয়েছিলেন আসামি রাশেদ। পূর্ব শত্রুতার জেরে সেদিন রাতে তাকে পরিকল্পিতভাবে দোকানে ঘুমন্ত অবস্থায় গলায় মাফলার পেঁচিয়ে হত্যা করে রাশেদ ও অন্য আসামিরা।

পরদিন সকালে ভাই আশরাফুল ইসলাম দোকানে গিয়ে নূরুন্নবীর লাশ দেখতে পান। পরে লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। এ ঘটনায় নিহতের বাবা মোখলেছুর রহমান বাদী হয়ে পাঁচ জনের নাম উল্লেখ করে চিলমারী থানায় হত্যা মামলা করেন।

মামলায় ৯ জনের সংশ্লিষ্টতার অভিযোগ এনে অভিযোগপত্র দেয় পুলিশ। পরে চাঁদ মিয়া নামে এক আসামির মৃত্যু হলে তাকে অব্যাহতি দেওয়া হয়। আসামিদের বিরুদ্ধে হত্যার অভিযোগ সন্দেহাতীতভাবে প্রমাণ হওয়ায় আদালত অপর আট আসামিকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ডের আদেশ দিয়েছেন।

সাথে থাকুন...
error1