কেনা জমিতে ঘরের বদলে শামীমের কবর!

‘কুড়িগ্রামের শামীম খুন ঢাকার এটিএম বুথে’

বাবা-ছেলের নিরাপত্তাকর্মীর চাকুরি। আর রাজধানীর ফুটপাতে মায়ের চা বিক্রি। যা আয় হতো সেটা দিয়েই চলতো সংসার। এর মধ্যেই টাকা জমিয়ে গ্রামে এক টুকরো জমি কিনেছিল পরিবারটি।

চেষ্টা ছিল সেখানে ঘর তোলার। কিন্তু নতুন ঘর হওয়ার আগেই প্রাণ কেড়ে নেওয়া হয় শামীমের। ফলে সেই জমিতেই সমাহিত করা হলো তাকে।

পরিবারের বড় ছেলে হিসেবে পরিবারের দায়িত্ব কাঁধে তুলে নিয়ে এক সময় যে শামীম মা-বাবা, ছোট ভাই-বোনকে নিয়ে গিয়েছিলেন ঢাকায়। মঙ্গলবার, ২২ জানুয়ারি রাতে সেই পরিবারের লোকজনই শামীমের নিথর দেহ এনে সমাহিত করেছে ওই জমিতে।

তাদের বাড়ি কুড়িগ্রামের ফুলবাড়ী উপজেলার কিশামত প্রাণকৃঞ্চ গ্রামে।

গত সোমবার ভোরে রাজধানীর বারিধারা এলাকায় যমুনা ব্যাংকের এটিএম বুথে নিরাপত্তাকর্মী শামীমকে হত্যা করে দুর্বৃত্তরা। এ ঘটনায় তার বাবা নজরুল ইসলাম সন্দেহভাজন চারজনকে আসামি করে ভাটারা থানায় হত্যা মামলা করেছেন।

দৈনিক কালের কন্ঠ’র খবরে বলা হয়, ‘সিসিটিভি ফুটেজে দেখা গেছে, মুখ বাঁধা একজন হাতে হাতুড়ি নিয়ে বুথের ভেতরে ঢুকেই নিরাপত্তাকর্মী শামীমকে প্রথমে মাথায় আঘাত করে। এরপর ঘাড়ে, বুকেও বেশ কয়েকটি আঘাত করতে থাকে সে। একপর্যায়ে ওই নিরাপত্তাকর্মীকে অচেতন হয়ে পড়লে সিসিটিভির একটি ক্যামেরা ভেঙে ফেলে ওই দুর্বৃত্ত। এরপর হাতুড়ি দিয়ে এটিএম বুথের টাকার ভল্ট ভাঙার চেষ্টা চালায়। তবে ভল্ট ভাঙতে না পেরে সে পালিয়ে যায়’।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, গ্রামে পরিবারের কেউ থাকেন না। তাই মঙ্গলবার বিকেল থেকে শামীমের জ্যাঠাদের বাড়িতেই চলেছে তার মরদেহ সমাহিত করার সব প্রস্তুতি। আর নতুন কেনা সেই জমিতেই খোঁড়া হয়েছে কবর।

মঙ্গলবার রাতে শামীমের মরদেহ গ্রামে ফিরলে শোকে ভারি হয়ে ওঠে পুরো এলাকার পরিবেশ। পরে জানাজা শেষে দাফন করা হয় খুন হওয়া শামীমের দেহ।

এইচএ/২৩.০১.১৯

লাইক দিয়ে সাথে থাকুন