নতুন বইয়ের গন্ধে মাতাল পড়ুয়ারা

প্রতি বছরের মতো এবারও নতুন বছরের প্রথম দিন সারাদেশের মতো রংপুর বিভাগের প্রাথমিক থেকে মাধ্যমিক পর্যন্ত পড়ুয়াদের হাতে বিনামূল্যে পাঠ্যবই তুলে দিয়েছে সরকার। আর উৎসবমুখর পরিবেশে শিক্ষার্থীরা নতুন বই পেয়ে তাই আনন্দে উদ্বেলিত। শহর থেকে গ্রাম প্রতিটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে যেন বয়ে যায় আনন্দের বন্যা।

এর আগে দেশজুড়ে প্রাক-প্রাথমিক, প্রাথমিক, মাধ্যমিক, ইবতেদায়ি, দাখিল, দাখিল ভোকেশনাল, ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠীর ভাষায় পাঠ্যপুস্তক এবং এসএসসি ভোকেশনাল স্তরের(কারিগরি ও ব্রেইল বইসহ) ৪ কোটি ২৬ লাখ ১৯ হাজার ৮৬৫ জন শিক্ষার্থীর মাঝে ৩৫ কোটি ২১ লাখ ৯৭ হাজার ৮৮২ কপি বই বিতরণের জন্য পৌঁছে দেয় সরকার।

এদিকে এবছর রংপুর বিভাগের আট জেলার ১৮ হাজার ১৮৪টি বিভিন্ন স্তরের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ৪ কোটি কপিরও বেশি নতুন বই শিক্ষার্থীদের হাতে তুলে দেয়া হয়েছে। এরমধ্যে প্রায় ১ কোটি ৯ লাখ ৮০ হাজার কপি নতুন বই পেয়েছে প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা। মাধ্যমিকে দেয়া হয়েছে ২ কোটি ৬ লাখ ২৭ হাজার ৬৬৭ কপি, কারিগরি ট্রেডে ১ লাখ ৮৯ হাজার ৯৭১ কপি, দাখিলে ৪৯ লাখ ১১ হাজার ৬৩৮ কপি, এসএসসি ও ভোকেশেনালে ৪৪ হাজার ৬০ কপি এবং ইবতেদায়ীতে ২৭ লাখ ৩৫ হাজার ৬৪২ কপি বই বিতরণ করা হয়েছে বলে সরকারি সূত্র বলছে।

ছবি : পিআইডি

বাসস পরিবেশিত খবরে বলা হয়, মঙ্গলবার, ১ জানুয়ারি রাজধানীর আজিমপুর গভর্মেন্ট গার্লস স্কুল এন্ড কলেজের খেলার মাঠে সকালে কেন্দ্রীয়ভাবে বিনামূল্যে পাঠ্যবই বিতরণ কার্যক্রমের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ। এসময় রাজধানীর ১০ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীদের হাতে ২০১৯ সালের নতুন পাঠ্যবই তুলে দেন তিনি।

অনুষ্ঠানে শিক্ষামন্ত্রী বলেন, ‘দেশের উন্নয়নে এবং বিশ্বদরবারে মাথা উঁচু করে দাঁড়াতে আমাদের শিক্ষার্থীদের পরিপূর্ণ মানুষ হিসেবে গড়ে তুলতে হবে যাতে তারা বিশ্বমানের নির্মাতা হিসেবে বিশ্বদরবারে নিজেদের আসন করে নিতে পারে’।

রংপুর থেকে স্টাফ রিপোর্টার জানান, রংপুরের বিভাগীয় কমিশনার মোহাম্মদ জয়নুল বারী বেলা ১১টায় রংপুর সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের মুক্তমঞ্চে আয়োজিত অনুষ্ঠানে অতিথি হিসেবে বই উৎসবের উদ্বোধন করেন । এসময় সেখানে ছিলেন জেলা প্রশাসক এনামুল হাবীব, মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বোর্ডের রংপুর অঞ্চলের উপ-পরিচালক মো. আখতারুজ্জামান। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন ড. একেএম সিরাজুল ইসলাম।

এদিকে সেনপাড়া সিটি কর্পোরেশন উচ্চ বিদ্যালয়ে বই উৎসবের উদ্বোধন করেছেন রংপুর সিটি কর্পোরেশন মেয়র মোস্তাফিজার রহমান মোস্তফা। পরে সিটি কর্পোরেশন পরিচালিত বেশ কয়েকটি বিদ্যালয়ে বই বিতরণ করেন।

দুপুরের দিকে চন্দনপাট ও শাহাবাজপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের হাতে নতুন বই তুলে দেওয়ার মধ্য দিয়ে উৎসবে অংশ নেন রংপুর সদর উপজেলা চেয়ারম্যান নাছিমা জামান ববি। এসময় তাঁর সাথে ছিলেন সদ্যপুষ্করনী ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান হাজী সোহেল রানা ও চন্দনপাট ইউনিয়ন চেয়ারম্যান আমিনুর রহমান।

সৈয়দপুর প্রতিনিধি জানান, নতুন বছরের প্রথম দিন নীলফামারী সৈয়দপুরের স্কুলে স্কুলে বই উৎসব হয়েছে।
সকাল ১০টায় সৈয়দপুর শহরের রামকৃষ্ণ মডেল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে প্রাথমিক পর্যায়ের বই উৎসবের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন সৈয়দপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) এস. এম. গোলাম কিবরিয়া। অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন রামকৃষ্ণ মডেল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পরিচালনা পর্ষদের সভাপতি পরিবহন ব্যবসায়ী মো. নজরুল ইসলাম রয়েল, রামকৃষ্ণ মডেল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. আবদুস্ সামাদ শাহ, সৈয়দপুর উপজেলা শিক্ষা অফিসার মো. শাহ্জাহান মন্ডল, সহকারি উপজেলা শিক্ষা অফিসার মো. জাকির হোসেন সরকার ও মুসারাত জাহান, উপজেলা রিসোর্স সেন্টারের (ইউআরসি) ইন্সট্রাক্টর নিরঞ্জন কুমার শীল, সৈয়দপুর উপজেলা যুবলীগের যুগ্ম-আহবায়ক মো. দিলনেওয়াজ খান প্রমূখ।

অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন সৈয়দপুর মহিলা ডিগ্রী মহাবিদ্যালয়ের অধ্যক্ষ সাবিনা সালাম ও উপজেলা কৃষি সম্প্রসারণ অফিসার কৃষিবিদ মো. সালাউদ্দিন। বই বিতরণ উৎসব অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন বিদ্যালয়ের সহকারি শিক্ষক মো. আরিফ রাশেদ।

এদিকে মাধ্যমিক পর্যায়ের বই উৎসবের উদ্বোধন করা হয় সৈয়দপুর তুলশীরাম সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ে। এখানেও প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ইউএনও এস এম গোলাম কিবরিয়া । এতে বক্তব্য রাখেন বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. আমিনুল রহমান ও উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা রেহেনা ইয়াসমীন।


লালমনিরহাটে হাতীবান্ধার পূর্ব ফকির পাড়া ২ নম্বর স্বতন্ত্র ইবতেদায়ী মাদ্রাসায় বই উৎসব। ছবি : রাতদিন.নিউজ

লালমনিরহাট থেকে স্টাফ রিপোর্টার জানান, প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি ও স্থানীয় সাংসদ মোতাহার হোসেন সকালে লালমনিরহাটের হাতীবান্ধা উপজেলার এসএস সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় ও ২ নম্বর মডেল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে পাঠ্যবই বিতরণ কর্মসূচীর উদ্বোধন করেন।

এদিকে নতুন বইয়ের আনন্দ থেকে বাদ পড়েনি গ্রামাঞ্চলের স্বতন্ত্র ইবতেদায়ী মাদ্রাসার শিক্ষার্থীরাও। লালমনিরহাটে হাতীবান্ধায় উৎসাহ উদ্দীপনার মধ্য দিয়ে বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের মতো পূর্ব ফকির পাড়া ২ নম্বর স্বতন্ত্র ইবতেদায়ী মাদ্রাসায়ও বই উৎসব অনুষ্ঠিত হয়।
প্রধান শিক্ষক আতিয়ার রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত বই উৎসবে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন ফকিরপাড়া ইউনিয়ন মহিলালীগের সভানেত্রী আঞ্জুমান আরা বেগম, ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের সভাপতি লুৎফর রহমান, সম্পাদক রফিকুল ইসলাম, আমিনুর রহমান খাঁন ও সাংবাদিক নূরল হক।

এর বাইরে পাটগ্রাম, কালীগঞ্জ, আদিতমারী ও লালমনিরহাট সদর উপজেলার বিভিন্ন স্তরের শিক্ষার্থীদের মাঝেও আনুষ্ঠানিকভাবে নতুন বই বিতরণ করা হয়।

লালমনিরহাট জেলার ১ হাজার ৫২৫টি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ১১ লাখ ৫১ হাজার ৩৭০ জন শিক্ষার্থীর মাঝে ২ লাখ ৪৩ হাজার ৭৮৫ কপি এবং মাধ্যমিক পর্যায়ে ৩০০ বিদ্যালয়ের ১ লাখ ৭৪ হাজার শিক্ষার্থীর হাতে প্রায় ২৩ লাখ নতুন বই বিতরণ করা হয়।

এইচএ/০১.০১.১৯

লাইক দিয়ে সাথে থাকুন
মতামত দিন