নায়িকা শিমলাকে বিয়েও করেছিলেন ‘বিমান ছিনতাই’ চেষ্টাকারী!

বিমান ছিনতাইয়ের চেষ্টাকারীর নাম মাহাদী নয়। সে আসলে মাহমুদ পলাশ । সে নারায়নগঞ্জের সোনারগাঁও সদর উপজেলার পিরিজপুর ইউনিয়নের দুধঘাটা গ্রামের ফিয়ার জাহানের ছেলে।

সোনারগাও থানার এসআই আবুল কালাম আজাদ জানিয়েছেন, কমান্ডো বাহিনীর গুলিতে নিহতের ছবি দেখালে তার বাবা ফিয়ার জাহান নিহতকে নিজের ছেলে পলাশ বলে নিশ্চিত করেছেন।

পলাশ আহমেদের বাবা সাংবাদিকদের বলেন, ‘গত বছরের ফেব্রুয়ারিতে শিমলা নামে এক মেয়েকে রাতে বাড়িতে নিয়ে আসে পলাশ। মেয়েটি চিত্রনায়িকা ও তার প্রেমিকা হিসেবে আমাদের সঙ্গে পরিচয় করিয়ে দেয়।’

‘এর মাস দুয়েক পর আবারও শিমলাকে বাড়িতে নিয়ে আসে পলাশ। এবার তাকে বিবাহিত স্ত্রী হিসেবে পরিচয় করিয়ে দেয়। শিমলাও আমাদের কাছে বিয়ের কথা স্বীকার করে। পরে তারা আবার ঢাকায় ফিরে যায়’- যোগ করে বলেন ফিয়ার জাহান।

ফিয়ার জাহান আরো জানান, তার ছেলেকে ভালো পথে ফিরিয়ে আনতে শিমলাকে বোঝানোর চেষ্টা করেছিলেন তারা।

জানা গেছে, ছোটবেলা থেকেই ছেলেটি অবাধ্য ছিল। পড়াশোনা ছেড়ে দিয়ে প্রবাস থেকে বাবার পাঠানো টাকা সে নানা পথে খরচ করেছে। পরে সে ঢাকায় চলে যায়। একসময়ে পলাশ চলচিত্রে জড়িয়ে পড়ে বলে জানিয়েছে তার পরিবার।

সোমবার, ২৫ ফেব্রুয়ারি সাংবাদিকরা পলাশের বাড়িতে গেলে তার বাবা শিমলা ও পলাশের একসাথে তোলা একটি ছবি এনে সাংবাদিকদের দেখান।

রোববার চট্টগ্রামে বিমান ছিনতাইয়ের ঘটনায় পলাশের মৃত্যুর খবর ফেসবুকের মাধ্যমে জানতে পারেন তার পরিবারের লোকজন।

রোববার সন্ধ্যায় বিমান বাংলাদেশ এয়ার লাইন্সের দুবাইগামী ওই উড়োজাহাজ ছিনতাইয়ের চেষ্টা ব্যর্থ হয়। সেনা কমান্ডোদের সঙ্গে গোলাগুলিতে নিহত হন বিমান ছিনতাইয়ের চেষ্টাকারী মাহমুদ পলাশ।

এবি/রাতদিন

লাইক দিয়ে সাথে থাকুন