পীরগঞ্জে অবৈধভাবে বালু উত্তোলনে প্রশাসনের অভিযান

অবশেষে পীরগঞ্জে অবৈধভাবে বালু উত্তোলনের সময় অভিযান চালালো ভ্রাম্যমান আদালত। এ সময় আদালত ৩টি স্যালোমেশিন পুড়িয়ে দিয়েছে এবং ১টি ট্রাক্টর জব্দ ও ১ ব্যক্তিকে আটক করেছে।

অপর এক অভিযানে উপজেলার চতরাহাটে অবৈধ ভাবে নির্মিত ১১টি দোকান ঘর ভেঙ্গে দিয়েছে আদালত। সোমবার ১১ ফের্রুয়ারি উপজেলার করতোয়া নদী ও চতরাহাটে এ অভিযান চলায় ভ্রাম্যমান আদালত।

ভ্রাম্যমান আদালত সুত্রে জানা গেছে, উপজেলার বড়আলমপুর ইউনিয়নের ধর্মদাশপুর, শিমুলবাড়ী, রামনাথপুর, উচাপাড়াসহ কয়েকটি গ্রামের লোকজন বিভিন্ন নামে সমিতি করে করতোয়া নদী থেকে দীর্ঘদিন ধরে বালু উত্তোলন করে আসছে। এবং ট্রাক্টরে বালু পরিবহন করছে এরফলে গ্রামীন রাস্তাগুলো চলাচলের অনুপযোগি হয়ে পরে।

পাশপাশি বালুভর্তি এসব ট্রাক্টরের চাপায় বেশ কয়েকজন মানুষ প্রাণ হারায় ফলে ৫ ফেব্রæয়ারী এসব এলাকার শতশত নারী-পুরুষ বালু উত্তোলন বন্ধে উপজেলার ধর্মদাশপুর আমিনিয়া দাখিল মাদরাসা মোড়ে মানববন্ধন করে। এ ঘটনায় সোমবার উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভুমি) করতোয়া নদীর পাড়ে বালু উত্তোলনের সময় ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করে ৩ টি স্যালোমেশিন পুড়িয়ে দেন। এ সময় ১টি ট্রাক্টর জব্দ ও ১ ব্যক্তিকে আটক করেছে।

অপর এক অভিযানে উপজেলার চতরা ইউনিয়নের চতরাহাটে অবৈধভাবে নির্মান ১১টি টীনের ঘর ভেঙ্গে গুড়িয়ে দিয়েছে ভ্রাম্যমান আদালত। এ বিষয়ে ভ্রাম্যমান আদালতের বিচারক ও সহকারী কমিশনার (ভুমি) সঞ্জয় কুমার মহন্ত জানান, অবৈধভাবে নদী থেকে বালু উত্তোলন ও দোকান ঘর নির্মান করায় এ অভিয়ান পরিচালনা করা হয়েছে।

লাইক দিয়ে সাথে থাকুন