পীরগঞ্জে জমি নিয়ে সংঘর্ষে আহত ১০

রংপুরের পীরগঞ্জে জমি নিয়ে সংঘর্ষে নারীসহ অন্তত ১০ জন আহত হয়েছেন। তাদের মধ্যে গুরতর আহত ১ জনকে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসাপাতালে পাঠানো হয়েছে।

মঙ্গলবার, ২২ জানুয়ারি উপজেলার রামনাথপুর গ্রামে এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। সন্ধ্যায় শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত সেখানে উত্তেজনা বিরাজ করছে।

জমির মালিকানা নিয়ে নির্মানাধীণ আফতাব হ্যাচারী নর্দান লিমিটেডের লোকজনের সাথে স্থানীয়দের এ সংঘর্ষ হয়।

জানা গেছে, প্রয়াত শিল্পপতি জহুরুল ইসলামের ছেলে মঞ্জুরুল ইসলাম বাবলু ২০১৩ সালে পীরগঞ্জের রামনাথপুর গ্রামে ‘আফতাব হ্যাচারী নর্দান লি. (পোল্ট্রি) চালু করতে জমি কেনেন।

প্রকল্পটির জন্য স্থানীয় একাধিক ব্যক্তির কাছ থেকে ১০ একর জমি কেনা হয়। এর মধ্যে জনৈক প্রয়াত তছির মিয়ার চার ভাইয়ের মধ্যে দুই ভাইয়ের কাছে ৩ একর ৬০ শতাংশ জমি কেনা হয়।

ফলে বঞ্চিত দুই ভাইয়ের অংশিদাররা এ নিয়ে মামলা করেন। ঠিক তখন থেকেই শুরু হয় বিবাদ।

এই অবস্থাতেই আফতাব হ্যাচারী নর্দান লিমিটেড কর্তৃপক্ষ সীমানা প্রাচীর দিয়ে পুরো জমি ঘিরে নেয়। শুরু করে যন্ত্রপাতি স্থাপনের কাজ।
ফলে এতে বাধ সাধেন জমিটির অংশিদার প্রয়াত তছির মিয়া ও তার ভাই মশর মিয়ার উত্তরসূরিরা। তারা সোমবার ওই জমিতে গাছের চারা রোপন করে।

কিন্তু মঙ্গলবার সকালে প্রকল্পের ভাড়াটে লোকজন চারাগুলো তুলে ফেললে সংঘর্ষ বাঁধে।

এতে সেলিম, জাকিরুল, নওশা, মুকুল, শাফিরুল, স্বাধীন, আজুবা বেগম, বেরুন মিয়া ওরফে জুয়েলসহ উভয়পক্ষের ১০ জন আহত হয়।

আহতদের মধ্যে জুয়েলকে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে এবং বাকিদের ভর্তি করা হয়েছে পীরগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে।

ইউনিয়ন চেয়ারম্যান সাদেকুল ইসলাম বিএসসি বলেন, ‘বুধবার বিষয়টি নিয়ে আপোষ মিমাংসার কথা রয়েছে;।

এ বিষয়ে কথা বলতে একাধিকবার যোগাযোগের চেষ্টা করেও আফতাব হ্যাচারী নর্দান লিমিটেডের কাউকে পাওয়া যায়নি।

পীরগঞ্জ থানার ওসি (তদন্ত) মাসুমুর রহমান বলেন, ‘ঘটনার খবর পেয়েছি। কিন্তু কোনো লিখিত অভিযোগ পাইনি’।

এইচএ/২২.০১.১৯

লাইক দিয়ে সাথে থাকুন