একটি আসন বাড়ল বিএনপির

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে স্থগিত হওয়া ব্রাহ্মণবাড়িয়া-২ (সরাইল ও আশুগঞ্জ) আসনের তিনটি কেন্দ্রে ভোটগ্রহণ শেষে ফলাফল ঘোষিত হয়েছে। প্রাপ্ত ফল অনুযায়ী বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন বিএনপি প্রার্থী উকিল আবদুস সাত্তার ভূঁইয়া। ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে তিনি মোট ১৩২ আসনে পেয়েছেন মোট ৮৩ হাজার ৯৯৭ ভোট।

এই ফলাফলের মধ্য দিয়ে একাদশ সংসদ নির্বাচনে বিএনপি মোট ৬ আসনে জয়লাভ করলো।

আবদুস সাত্তার ভূঁইয়া

তাঁর নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী স্বতন্ত্র প্রার্থী ও জেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মঈন উদ্দিন মঈন কলার ছড়ি প্রতীকে পেয়েছেন ৭৫ হাজার ৪১৯ ভোট।

এর আগে বুধবার, ৯ জানুয়ারি  সকাল ৮টা থেকে শুরু হয়ে ভোটগ্রহণ, চলে বিকাল ৪টা পর্যন্ত। তিন কেন্দ্রে ২০টি বুথে ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়।

কেন্দ্রগুলো হলো- সোহাগপুর দক্ষিণ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, যাত্রাপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ও বাহাদুরপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ভোটকেন্দ্র। এসব কেন্দ্রে মোট ভোটার সংখ্যা ১০ হাজার ৫৭৪।

ছবি- সংগৃহীত
এ সম্পর্কিত আরও খবর...

ভোটার সংখ্যা হিসেবে ওই তিন কেন্দ্রের ভোটেই নির্ধারণ হলো বিএনপির প্রার্থী আবদুস সাত্তার ভূইয়া ও স্বতন্ত্র প্রার্থী মো. মঈন উদ্দিনের ভাগ্য।

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার ছয়টি আসনের মধ্যে পাঁচটি আসনে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থীরা বিপুল ভোটের ব্যবধানে বিজয়ী হন। তবে ব্রাহ্মণবাড়িয়া-২ (সরাইল ও আশুগঞ্জ) আসনের তিনটি কেন্দ্রে ভোটগ্রহণ স্থগিত থাকায় চূড়ান্ত ফলাফল পাওয়া যায়নি।

ওই আসনে ১২৯ টি কেন্দ্রের ফলাফলে ‘ধানের শীষ’ প্রতীকে আবদুস সাত্তার ভূইয়া পেয়েছেন ৮২ হাজার ৭২৩ ভোট। তার নিকটতম স্বতন্ত্র প্রার্থী মঈন উদ্দিন ‘কলার ছড়ি’ প্রতীকে পেয়েছেন ৭২ হাজার ৫৬৪ ভোট।

তিনটি কেন্দ্রকেই গুরুত্বসহকারে বিবেচনা করে নির্বাচন কমিশন বিশেষ দৃষ্টি রাখে। কেন্দ্রগুলোর প্রতিটিতে ১১৩ জন করে ৩৩৯ জন পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছিল।

গত ৩০ ডিসেম্বরের নির্বাচনে আসনের মোট ১৩২ কেন্দ্রের মধ্যে তিনটি কেন্দ্রে অনিয়ম -গোলযোগের কারণে ভোটগ্রহণ স্থগিত রাখা হয়েছিল।

এমআরডি-০৯/০১/২০১৯

সাথে থাকুন...
মতামত দিন