রংপুরের নগরপিতা নয়, সেবক হিসেবে থাকতে চান মেয়র মোস্তফা

রংপুর সিটি করপোরেশনের (রসিক) মেয়র মোস্তাফিজার রহমান মোস্তফা বলেছেন, এর আগের মেয়রের মেয়াদকালে বিভিন্ন উন্নয়নমূলক কাজের যেসব টেন্ডার দেয়া হয়েছিলো তার মধ্যে ১২টি কাজ ঠিকাদারের অবহেলার কারণে বন্ধ হয়ে যায়। ফলে উন্নয়ন কাজ কিছুটা হলেও থমকে গেছে। সেসব ঠিকাদারদের চিহ্নিত করে তাদের কাজ স্থগিত করে পুনরায় টেন্ডার আহ্বানের প্রক্রিয়া চলছে।

মঙ্গলবার, ১৯ ফেব্রুয়ারি রংপুর সিটি করপোরেশন চত্ত্বরে বর্তমান পরিষদের এক বছর পূর্তি উপলক্ষে আয়োজিত মুখোমুখি অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন মেয়র।

তিনি বলেন, ‘গত এক বছরে এই সিটি করপোরেশনের মাধ্যমে যে উন্নয়ন হয়েছে তাতে আমি নিজেও সন্তুষ্ট হতে পারিনি।’

মেয়র বলেন, গত এক বছরে রাস্তাঘাট, ব্রীজ, কালভার্ট ও ড্রেন নির্মাণ এবং সড়ক বাতি স্থাপনের পাশাপাশি উন্নয়ন-রক্ষনাবেক্ষনে নানা পদক্ষেপ শুরু হয়েছে।

মোস্তাফিজার রহমান মোস্তফা বলেন, ৩০৬ কোটি ৪৮ লাখ টাকা ব্যয়ে বিভিন্ন উন্নয়ন মুলক কর্মকান্ড চলমান রয়েছে। ৮৮ কোটি ২ লাখ টাকায় বিভিন্ন উন্নয়নমূলক কাজের ট্রেন্ডার প্রক্রিয়াধীন আছে। যা আগামী এক বছরে বাস্তবায়ন হবে। এতে নগরবাসীর সুবিধা অনেকাংশে বাড়বে বলে তিনি আশা প্রকাশ করেন।

রসিক মেয়র বলেন, নগরবাসীর সেবক হিসেবে থাকতে চাই। নগরপিতা হিসেবে নয়।

রংপুর সিটি করপোরেশনের সচিব আবু সালেহ মোহাম্মদ মুসা জঙ্গির সভাপতিত্বে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন রসিক প্যানেল মেয়র সামসুল হক, মাহমুদুর রহমান টিটু, কাউন্সিলর মাহাবুব রহমান মন্জু, তৌহিদুল ইসলাম, মীর মোহাম্মদ জামাল, রহমতুল্লাহ, মহিলা কাউন্সিলর নাছিমা আমিন, মোখলেছুর রহমান তরু, জাকারিয়া আলম শিপলু, মোঃ আমিনুল ইসলাম, ফেরদৌসী বেগম, মোঃ শফিকুল ইসলাম মিঠু, মাহাবুবুর রহমান মঞ্জু, সেকেন্দার আলী, তত্বাবধায়ক প্রকৌশলী এমদাদ হোসেন ও নির্বাহী প্রকৌশলী মো:আজম আলী প্রমূখ ।

অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন রংপুর প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রশিদ বাবু, সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব মনোয়ার হোসেন, নাট্য ব্যক্তিত্ব হাসান আলী ও সাংবাদিক শরিফুল ইসলাম সম্রাট।

এবি/রাতদিন

লাইক দিয়ে সাথে থাকুন