রংপুরে সাংবাদিক নির্যাতনের প্রতিবাদে বিক্ষোভ-মানববন্ধন


‘৭২ ঘন্টার মধ্যে ছাত্রলীগ নামধারী মাহমুদুল ইসলাম জয় ও তার ক্যাডারদের গ্রেফতার করা না হলে পুলিশ কমিশনারের কার্যালয়ের সামনে অবস্থানসহ কঠোর কর্মসূচি ঘোষণা করা হবে’

বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ে (বেরোবি) দুই সাংবাদিককে মারধরের প্রতিবাদে বিক্ষোভ ও মানববন্ধন করেছে রংপুরে কর্মরত গণমাধ্যমর্কীরা।

বৃহস্পতিবার, ৩১ জানুয়ারি দুপুরে নগরীতে বের হওয়া বিক্ষোভ মিছিল বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিন করে। পরে প্রেসক্লাবের সামনে মানববন্ধনে অংশ নেয় সাংবাদিকরা।

মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন প্রবীণ সাংবাদিক আব্দুস সাহেদ মন্টু, রংপুর প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক রশীদ বাবু, এটিএন বাংলার প্রতিনিধি মাহবুবুল ইসলাম, ডিবিসি নিউজের নাজমুল ইসলাম নিশাত, একুশে টিভি ও দৈনিক সংবাদের লিয়াকত আলী বাদল, ভিডিও জার্নালিস্ট অ্যাসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক এহেসানুল হক সুমন প্রমুখ।

এসময় উপস্থিত ছিলেন নয়া দিগন্ত’র রংপুর অফিস প্রধান সরকার মাজহারুল মান্নান, রংপুর রিপোটার্স ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক শাহ বায়েজীদ আহমেদ ও কোষাধ্যক্ষ ফরহাদুজ্জামান ফারুক।

ছবি : রাতদিন.নিউজ

মানববন্ধনে আরও ছিলেন জাগো নিউজের নিজস্ব প্রতিবেদক জিতু কবির, ভিডিও জার্নালিস্ট অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি শাহনেওয়াজ জনি, বাংলাদেশ ফটো জার্নালিস্ট অ্যাসোসিয়েশন সাধারণ সম্পাদক মমিনুল ইসলাম রিপন, যুগ্ন সম্পাদক আসাদুজ্জামান আরমান ও দপ্তর সম্পাদক মেজবাহুল হিমেল।

কর্মসূচিতে তারা ছাড়াও রংপুরে কর্মরত বিভিন্ন প্রিন্ট, ইলেক্টনিক্স, অনলাইন এবং ভিডিও ও ফটো সাংবাদিকরা অংশ নেন।

বক্তারা আল্টিমেটাম দিয়ে বলেন, ‘৭২ ঘন্টার মধ্যে ছাত্রলীগ নামধারী মাহমুদুল ইসলাম জয় ও তার ক্যাডারদের গ্রেফতার করা না হলে পুলিশ কমিশনারের কার্যালয়ের সামনে অবস্থানসহ কঠোর কর্মসূচি ঘোষণা করা হবে’।

প্রসঙ্গত গত মঙ্গলবার বিশ্ববিদ্যালয়ের শহীদ মুখতার ইলাহী হলে নিজেদের নামে বরাদ্ধকৃত আসনে উঠতে গিয়ে বোরোবি শাখা ছাত্রলীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক মাহমুদুল ইসলাম জয় ও তার কয়েকজন সহযোগীর হাতে মারধরের শিকার হন দুই সাংবাদিক।

তারা হলেন দৈনিক সংবাদের বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি আল আমিন হোসেন ও বাংলাদেশ প্রতিদিন পত্রিকার বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি সৌম্য সরকার।

এইচএ/৩১.০১.১৯

লাইক দিয়ে সাথে থাকুন