সকালে কেন্দ্রে ঢুকে রাতে পরীক্ষা দিল ৫১ শিক্ষার্থী

শনিবার, ২ ফেব্রুয়ারি সকাল ১০টা থেকে শুরু হয় এসএসসি ও সমমান পরীক্ষা। প্রথমদিন ছিল বাংলা প্রথম পত্র পরীক্ষা। অন্যান্য পরীক্ষার্থীদের মতো তারাও কেন্দ্রে এসেছিল সকাল সাড়ে নয়টার দিকে।

যথারীতি সকাল ১০টায় অন্য পরীক্ষার্থীরা পরীক্ষা দেয়া শুরু করলেও গোপালগঞ্জের ৫১ শিক্ষার্থী কেন্দ্রের নির্ধারিত কক্ষে অবস্থান করছিল। অপেক্ষা সন্ধ্যা ৬টার। তারা পরীক্ষা দেয়া শুরু করবে ওই সময়ে।

সন্ধ্যা ৬টা থেকে রাত ৯টা পর্যন্ত পরীক্ষা দেয়া কুষ্টিয়ার রিকির মতো ওই ৫১ শিক্ষার্থীও খ্রিষ্টান ধর্মাবলম্বী ‘সেভেন্থ ডে এডভান্টিস্ট’ সম্প্রদায়ের। রিকির মতো তাদেরও বিশেষ ব্যবস্থায় পরীক্ষা নিয়েছে কতৃপক্ষ।

ওই ৫১ পরীক্ষার্থী  গোপালগঞ্জের মুকসুদপুর উপজেলার কেলগ মুখার্জী সেমিনারী উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী। ঢাকা বোর্ডের অনুমতি নিয়ে তারা রাতে পরীক্ষা দেয়ার সুযোগ পায়।

তারা উপজেলার জলিরপাড় জেকেএমবি মল্লিক উচ্চ বিদ্যালয়ে কেন্দ্রে পরীক্ষায় অংশ নেয়।

চ্যানেল টোয়েন্টিফোরের খবরে বলা হয়, সকালের প্রশ্ন আর রাতের প্রশ্ন একই হওয়ায় অন্য পরীক্ষার্থীদের সাথে সকালেই তাদের কেন্দ্রে প্রবেশ করতে হয়। দীর্ঘ সময় কেন্দ্রে থেকে ক্লান্ত হলেও রাতে পরীক্ষা দেয়ার সুযোগ পেয়ে খুশি তারা।

রাতে পরীক্ষা নেয়ার আগে বিদ্যুতের পাশাপাশি জেনারেটরের ব্যবস্থা করে কর্তৃপক্ষ। এর আগে কেন্দ্রে তাদের জন্য বিশ্রামের ব্যবস্থা করা হয়।  

চলতি এসএসসি পরীক্ষার চারটি বিষয়ের পরীক্ষা হবে শনিবার। তাই প্রথমটির মতো বাকি পরীক্ষাগুলোও রাতে দেবেন খ্রিষ্টান ধর্মাবলম্বী ‘সেভেন্থ ডে এডভান্টিস্ট’ সম্প্রদায়ের পরীক্ষার্থীরা।

ওই সম্প্রদায়ের বিধান অনুযায়ী, শনিবার তারা ধর্মীয় উপাসনা করে। এদিন পড়াশোনা, লেখালেখি, খেলাধুলা, কেনাকাটাসহ সকল প্রকার কাজ থেকে বিরত থাকে।

ওই সম্প্রদায়ের সবাই এই রীতি মেনেই পরীক্ষা দেয় বলে জানিয়েছে শিক্ষার্থীরা।

এইচএ/০৩.০২.১৯

লাইক দিয়ে সাথে থাকুন