অভিনন্দনের সাথে কে এই নারী?

পাকিস্তান সীমান্তের ওপার। ওয়াগাহ-আতারি সীমান্ত ধরে জিরোলাইনের দিকে হেঁটে আসার সময় ভারতীয় বিমান বাহিনীর উইং কম্যান্ডার অভিনন্দন বর্তমানের পাশে এক নারীকেও আসতে দেখা যায়। শুক্রবার, ১ মার্চ রাতে এসময় হাঁটতে হাঁটতে অভিনন্দনের সাথে হাসি মুখে কথাও বলতে দেখা গিয়েছে ওই নারীকে।

অভিনন্দনের ফিরে আসার মুহূর্ত দেখার জন্য যখন টানটান উত্তেজনায় টেলিভিশনে চোখ গোটা ভারতের, তখন ওই মহিলাকে জিরো লাইনের দিকে এগিয়ে আসতে দেখে শুরু হয় নানা আলোচনা।

অনেকেই ভেবে বসেন তিনি অভিনন্দনের স্ত্রী। কেউ কেউ ভাবতে শুরু করেন হয়তো অভিনন্দনের পরিবারের কেউ। তাহলে কি অভিনন্দনকে ফিরিয়ে আনার জন্য পাকিস্তান সরকার ওই নারীকে নিয়ে গিয়েছিল সেদেশে?

সেই জল্পনা-কল্পনার সূত্র ধরে খোঁজ নিয়ে একটি সংবাদ প্রকাশ করেছে কলকাতার দৈনিক আনন্দবাজার অনলাইন।

প্রতিবেদনে বলা ওই নারীর নাম ফারিহা বুগতি। পাকিস্তানের ফরেন সার্ভিসের ডাকসাইটে অফিসার তিনি।  ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রনালয়ের অধিনে যেমন পাকিস্তানের জন্য রয়েছে আলাদা বিভাগ। তেমনি পাক পররাষ্ট্রমন্ত্রনালয়েরও রয়েছে ভারত বিষয়ক আলাদা দফতর। বুগতি সেই দফতরের কর্মকর্তা।

ওয়াগাহ সীমান্তের জিরো লাইন পর্যন্ত নিয়ে গিয়ে অভিনন্দনকে বিএসএফের হাতে নিরাপদে তুলে দেওয়ার দায়িত্বটা ছিল বুগতির কাঁধে।

২০০৫ সালে পাকিস্তানের পররাষ্ট্র মন্ত্রনালয়ে যোগ দেন তিনি। এর দুবছর পর ওই মন্ত্রনালয়ের মুখপাত্রের সহকারী কর্মকর্তা হয়ে যান তিনি। দেশটির ওই মন্ত্রনালয়ে যে ৪৫ জন নারী অফিসার আছেন, তাঁদের মধ্যে বালুচিস্তানের একমাত্র প্রতিনিধি ফারিয়া বুগতি।

কিছু দিনের মধ্যে তিনি পাকিস্তানের সেকেন্ড সেক্রেটারি হিসাবে জেনেভায় যাচ্ছেন বলেও খবরে বলা হয়েছে।

এবি/রাতদিন

লাইক দিয়ে সাথে থাকুন