কালীগঞ্জের সেই ‘ডাইল মেম্বার’ পুলিশের গুলিতে বিদ্ধ

লালমনিরহাট-বুড়িমারী মহাসড়কের পাশে কালীগঞ্জের চৌধুরীর মোড়ের সেই ‘ডাইল মেম্বার’ পুলিশের গুলিতে বিদ্ধ হয়েছেন। তবে সে কোনো ইউপি সদস্য নয়। কখনো নির্বাচিতও হননি।

তার নাম মূলত মহুবর রহমান। ফেন্সিডিলসহ নানা ধরণের মাদক কেনাবেচার সাথে দীর্ঘদিন ধরে  জড়িত অভিযোগে স্থানীয়রাই দিয়েছেন ওই নাম।

সে কালীগঞ্জ উপজেলার কাশিরাম গ্রামের প্রয়াত মোহাম্মদ আলীর ছেলে। তার বিরুদ্ধে মাদকের পাঁচটি মামলা রয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

‘এসপি লালমনিরহাট’ ফেসবুক পেজে দেয়া তথ্য অনুযায়ী, মঙ্গলবার, ১২ ফেব্রুয়ারি রাতে মহুবরের বাড়িতে চলমান মাদক বিরোধী বিশেষ অভিযান পরিচালনা করে পুলিশ।

এসময় সেখান থেকে ১৫০ বোতল ফেন্সিডিলসহ মহুবরকে হাতেনাতে আটক করা হয়। অভিযানে কালীগঞ্জ থানার ওসি মকবুল হোসেনসহ পুলিশের একটি দল অংশ নেয়।

পরে তার দেয়া তথ্যের ভিত্তিতে মহুবরকে সাথে নিয়েই উপজেলার লতাবর এলাকার মজিবর রহমানের ছেলে মনির হোসেনের বাড়ির পথে রওয়ানা হয় পুলিশ । পুলিশকে মহুবর তথ্য দিয়েছিল ওই বাড়িতে মাদক মজুদ করে রাখা হয়েছে।

তবে লতাবরের কদমতলা ব্রীজে পৌঁছলে মনিরসহ আরো কয়েকজন অর্তকিতভাবে পুলিশের উপর হামলা চালিয়ে মহুবরকে ছিনিয়ে নেয়ার চেষ্টা করে। এই অবস্থায় পুলিশ এক রাউন্ড গুলি চালালে মহুবর রহমান ওরফে ডাইল মেম্বার বাম পায়ে গুলিবিদ্ধ হয়। আর অন্যান্য পালিয়ে যায়।

পরে মহুবরকে কালীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়।

এ ঘটনায় পুলিশ বাদি হয়ে কালীগঞ্জ থানায় মামলা দায়ের করেছে বলেও এসপি লালমনিরহাট ফেসবুক পেজে উল্লেখ করা হয়েছে।

এদিকে চৌধুরী মোড় এলাকার লোকজন অভিযোগ করেছেন, মহুবর দীর্ঘদিন ধরে মাদক কেনাবেচার সাথে জড়িত। সে তার বাড়ি থেকে খুচরা মাদক বিক্রি ছাড়াও মাদকের চালান পাঠাতো বিভিন্ন এলাকায়।

এবি/রাতদিন

লাইক দিয়ে সাথে থাকুন