‘জামায়াতকে ৩০ বছর ধরে বোঝাতে ব্যর্থ হয়ে’ ব্যারিস্টার রাজ্জাকের পদত্যাগ

অবশেষে দল থেকে পদত্যাগ করলেন জামায়াতের সহকারী সেক্রেটারী জেনারেল ও দলের প্রভাবশালী নেতা ব্যারিস্টার আবদুর রাজ্জাক।

মানবতাবিরোধী অপরাধে জড়িত জামায়াত নেতাদের প্রধান এই আইনজীবী লন্ডন থেকে দলের আমির মকবুল আহমদকে পাঠানো এক চিঠিতে পদত্যাগের ঘোষণা দেন।

মুক্তিযুদ্ধের সময়ের  কর্মকান্ডের জন্য জাতির ক্ষমা চাওয়া এবং একই ইস্যুতে দেশে  রাজনৈতিক দল হিসেবে জামায়াতকে বিলুপ্ত করার বিষয়ে কোনো সাড়া না পেয়েই তার এই পদত্যাগ বলে তিনি নিজেই তার চিঠিতে উল্লেখে করেছেন।

বিবিসি বাংলা তার সেই চিঠিটি প্রকাশ করেছে।

আবদুর রাজ্জাক পদত্যাগপত্রে বলেন, ‘স্বাধীনতার ৪৭ বছর পর আজও দলের নেতৃবৃন্দ একাত্তরের ভূমিকার জন্য ক্ষমা চাইতে পারেনি। এমনকি মহান স্বাধীনতা যুদ্ধ প্রসঙ্গে দলের অবস্থানও ব্যাখ্যা করেনি।’

এই আইনজীবী চিঠিতে উল্লেখ করেন, গত একাদশ সংসদ নির্বাচনে ভরাডুবির পর জামায়াতের করণীয় সম্পর্কে তার মতামত চাওয়া হয়েছিল।

ওই প্রসঙ্গে তিনি চিঠিতে বলেন, ‘আমি যুদ্ধকালীন জামায়াতের ভূমিকা সম্পর্কে দায়-দায়িত্ব গ্রহণ করে ক্ষমা চাওয়ার পরামর্শ দিই। অন্য কোনো বিকল্প না পেয়ে বলেছিলাম, জামায়াত বিলুপ্ত করে দিন।’

‘গত ৩০ বছর আমি সেই চেষ্টাই করেছি। আমি কাঠামোগত সংস্কার ও নারীর কার্যকর অংশগ্রহণের পক্ষে ছিলাম। ২০১৬ সালে চিঠি দিয়ে অভ্যন্তরীণ সংস্কারের ওপর সর্বোচ্চ গুরুত্ব দিয়েছি। কিন্তু কোনো ইতিবাচক সাড়া পাইনি’ – চিঠিতে  উল্লেখ করেন আবদুর রাজ্জাক।

এবি/রাতদিন

লাইক দিয়ে সাথে থাকুন