ঠাকুরগাঁওয়ে ১৫ দিনে একই পরিবারের ৫ জনের মৃত্যু

ঠাকুরগাঁওয়ের বালিয়াডাঙ্গী উপজেলার ধনতলা ইউনিয়নে ভান্ডারদহ মরিচপাড়া গ্রামে ‘অজ্ঞাত’ রোগে একই পরিবারের ৫ জনের মৃত্যুর ঘটনা ঘটেছে। মাত্র ১৫ দিনের ব্যবধানে একেএকে মৃত্যু বরণ করেন তারা।

জানা যায়, ওই গ্রামের আবু তাহের (৫৬) গত ৯ ফেব্রুয়ারি মারা যান। এর ঠিক ১০ দিন পরেই অসুস্থ হয়ে পড়েন তার জামাই হাবিবুর রহমান বাবলু (৩৪)।

ফলে সদর উপজেলার রুহিয়া থানার কুজিশহর গ্রামের বাসিন্দা বাবলুকে ভর্তি করা রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে। সেখানে গত বুধবার ( ২০ ফেব্রুয়ারি ) তার মৃত্যু হয়।

এদিকে মেয়ে জামাইয়ের মৃত্যুর খবর পেয়ে কিছুক্ষণ যেতে না যেতে মারা যান আবু তাহেরের স্ত্রী হোসনেয়ারা বেগম (৪৬)।

তবে এমন ঘটনা আরও বাড়তে থাকে পরিবারে। কারণ রবিবার সকালে হঠাৎই অসুস্থ হয়ে পড়েন কিছুদিন আগে না ফেরার দেশে যাওয়া আবু তাহেরের দুই ছেলে। তারা হলেন মেহেদী হাসান (২৫) ইউসুফ আলী (২৮) ।

সেকারণে তাদের দু‘জনের চিকিৎসার জন্য হাসপাতালে নেয়া হয়। কিন্তু সকালে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে যাওয়ার পথেই ইউসুফের মৃত্যু হয়। আর রাতেই মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়েন অপর ভাই মেহেদী হাসান।

অপরদিকে ইউসুফের স্ত্রী কোহিনুর বেগম তার একমাত্র কন্যা সন্তানকে নিয়ে বালিয়াডাঙ্গী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা নিচ্ছেন।

‘কন্যা সন্তানসহ ইউসুফর স্ত্রী কোহিনুর বর্তমানে সুস্থ রয়েছেন বলে সাংবাদিকদের জানিয়েছেন বালিয়াডাঙ্গী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের চিকিৎসক মোর্শেদ মাসুম বিল্লাহ।

তিনি আরও জানান, তাদেরকে নিবিড় পরিচর্যায় রাখা হয়েছে। এতে ভয়ের কিছু নেই বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন ওই চিকিৎসক।

ওই উপজেলার ৩ নম্বর ধনতলা ইউপি চেয়ারম্যান সমর কুমার চ্যাটাজ্জী জানান, এমন মৃত্যুর বিষয়ে এলাকাবাসীদের মনে নানা রকম প্রশ্ন উঠছে। তারা সবাই এবিষয়ে সংশ্লিষ্টদের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. ফিরোজ জামান জুয়েলকে বিষয়টি দেখার জন্য বলা হয়েছে উল্লেখ বালিয়াডাঙ্গী ইউএনও মাসুদুর রহমান গণমাধ্যমকে বলেন, বিশেষজ্ঞ ছাড়া আপাতত এ বিষয়ে কিছু বলা যাচ্ছে না।’

তবে এমন মৃত্যুর ঘটনা ব্রেন ভাইরাসের কারণে ঘটতে পারে বলে সাংবাদিকদের জানিয়েছেন বালিয়াডাঙ্গী উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. ফিরোজ জামান জুয়েল । তার মতে, হাঁচি বা কাশির মাধ্যমে এ রোগ ছড়িয়ে যেতে পারে।

ঠাকুরগাঁও জেলা প্রশাসক ড. কে এম কামরুজ্জামান সেলিম জানান, বিষয়টি শুনে ঠাকুরগাঁও সিভিল সার্জনকে অবগত করা হয়েছে।

এমআরডি/রাতদিন

লাইক দিয়ে সাথে থাকুন