নিউজিল্যান্ডে মারা যাননি কুড়িগ্রামের সামাদের স্ত্রী, ভুল সংবাদে ছেলের ক্ষোভ

নিউজিল্যান্ডে ক্রাইস্টচার্চে বন্দুকধারীর গুলিতে নিহত কুড়িগ্রামের ড. আব্দুস সামাদের স্ত্রী কেশোয়ারা সুলতানা মারা যাননি।

শুক্রবার, ১৬ মার্চ রাতে নিহতের বড় ছেলে তোহান মোহাম্মদ ঢাকা থেকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন বলে যুগান্তর অনলাইনের এক খবরে বলা হয়ছে।

তোহান জানান, ‘সন্ধ্যার পরেও মায়ের সঙ্গে ফোনে কথা হয়েছে। তিনি সুস্থ আছেন।’

এর আগে দেশের বিভিন্ন গণমাধ্যমে বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক শিক্ষক ও  ক্রাইস্টচার্চে আল নূর মসজিদের মুয়াজ্জিন ড. আব্দুস সামাদ তাঁর স্ত্রীসহ গুলিতে নিহত হয়েছেন বলে খবর প্রকাশ করা হয়।

মাকে নিয়ে মিথ্যা সংবাদ প্রকাশ করায় ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন তোহান মোহাম্মদ।

নিহত ড. আব্দুস সামাদের বাড়ি নাগেশ্বরী উপজেলার মধুরহাইল্যা গ্রামে। তার বাবা জামাল উদ্দিন সরকার। পাঁচ ভাই ও ছয় বোনের মধ্যে তিনি ছিলেন তৃতীয়।

ড. সামাদ ২০১৩ সালে কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় থেকে চাকরি ছেড়ে দিয়ে নাগরিকত্ব নিয়ে স্ত্রী কেশোয়ারা, ছেলে তোহান মোহাম্মদ, তারেক ও তানভিরসহ নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চ শহরে স্থায়ী বসবাস শুরু করেন।

পরে বড় ছেলে তোহান মোহাম্মদ দেশে ফিরে ঢাকায় বসবাস শুরু করেন।

নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চে দুটি মসজিদে শুক্রবার, ১৫ মার্চ জুমার নামাজের সময় বন্দুকধারীর হামলায় ৪৯ জন মারা যান। এ ঘটনায় আহত হয়েছেন আরও অন্তত ৪৮ জন। নিহতদের মধ্যে দুই বাংলাদেশি রয়েছেন।

ড. সামাদ ছাড়া অপর বাংলাদেশি হলেন সিলেটের গোলাপগঞ্জের হুসনে আরা পারভীন (৪০)।

এইচএ/রাতদিন

লাইক দিয়ে সাথে থাকুন