রংপুরে কেন্দ্রের বাইরে আনন্দ-উৎসব, ভিতরে ফাঁকা

ভোট কেন্দ্রের বাইরে অস্থায়ী দোকান, লোকজনের হৈ-হল্লা সবই আছে শুধু কেন্দ্রের ভিতরে ফাঁকা। নেই উল্লেখ করার মতো ভোটার।  এভাবেই ভোট গ্রহণ চলছে রংপুরের ৬ উপজেলায়।

সকাল ১১টা পর্যন্ত কেন্দ্রগুলোতে ভোটার উপস্তিতি ছিলো একেবারে সীমিত।

সরজমিনে পীরগাছা সাতদরগা সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়সহ বিভিন্ন কেন্দ্রে দেখা গেছে, সকাল ১০ টা পর্যন্ত সেখানে ভোটারদের কোনো লাইন নেই।ওইসব কেন্দ্রে এক সঙ্গে ভোট দিতে আসা ৫/৬ জনকেও দেখা যায় নি। তবে কেন্দ্রের বাইরে কোথাও কোথাও কিছু মানুষের জটলা দেখা যায়।

রংপুরে উপজেলা নির্বাচনে উপস্থিতি নেই বললেই চলে

পীরগাছা ঝিনিয়া ধনিরবাজার উচ্চ বিদ্যালয় ভোট কেন্দ্রে সকাল ৯ টা পর্যন্ত ভোট পড়েছে শতকরা ১০ ভাগ । ভোটার উপস্তিতির বিষয়ে এই কেন্দ্রের পিজাইডিং অফিসার শফিকুল ইসলাম খান জানান, ‘এখন পর্যন্ত ভোটারের লাইন হয় নি। তবে দু এক জন করে এসে ভোট দিয়ে যাচ্ছেন। ভোট সুষ্ঠু ও সুন্দর পরিবেশে হচ্ছে।’

জেলা নির্বাচন কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে, রংপুরে দ্বিতীয় ধাপের নির্বাচনে ছয়টি উপজেলায় ৬০ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। এরমধ্যে পীরগঞ্জ উপজেলায় ১৩, বদরগঞ্জে ১০, তারাগঞ্জে ১০, পীরগাছা উপজেলায় ৬, কাউনিয়াতে ৮ এবং গঙ্গাচড়ায় ১৮ জন প্রার্থী রয়েছেন।

তবে কাউনিয়া ও গংগাচড়া উপজেলায় বিনা প্রতিদ্বন্দিতায় চেয়ারম্যান নির্বাচিত হওয়ায় ওই দুই উপজেলায় চেয়ারম্যান পদে ভোটগ্রহন হচ্ছে না।

আরআই/রাতদিন

লাইক দিয়ে সাথে থাকুন