রংপুরে মেডিকেলে ইন্টার্ণ চিকিৎসকদের কর্মবিরতি, রোগীদের দুর্ভোগ

মঙ্গলবার, ১২ মার্চ সকাল থেকে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে অনির্দিষ্টকালের কর্মবিরতি শুরু করেছে ইন্টার্ণ চিকিৎসক পরিষদ।

রোগীর স্বজনের হাতে ইন্টার্ণ চিকিৎসকদের লাঞ্ছিত ও তাদের কক্ষের আসবাবপত্র তছনছ করার প্রতিবাদে চলছে এ কর্মবিরতি।

এদিকে এ কর্মবিরতির কারণে দুর্ভোগে পড়েছেন রোগীরা। অসংখ্য রোগী হচ্ছেন চিকিৎসা সেবা বঞ্চিত।

জানা গেছে, মঙ্গলবার ভোরের দিকে হৃদরোগ বিভাগে রহিমা খাতুন (৯৫) নামে এক বৃদ্ধা ভর্তি হন। তবে চিকিৎসাধীন অবস্থায় সকাল ৬টা ৫ মিনিটে তিনি মারা যান।

তাঁর মৃত্যুকে কেন্দ্র করে সিনিয়র স্টাফ নার্স, ইন্টার্ন চিকিৎসক ও উর্ধ্বতন চিকিৎসকের সাথে বির্তকে জড়িয়ে পড়ে মৃতের স্বজনরা। এক পর্যায়ে তারা অশালীন আচারণ করেন চিকিৎসকদের সাথে। সেসময় ইন্টার্ণ চিকিৎসক হালিমা ও আলেয়াকে লাঞ্চিতসহ ইন্টার্ণ চিকিৎসকদের কক্ষের আসবাবপত্র তছনছ করা হয় বলে চিকিৎসকরা অভিযোগ করেছেন।

এ ঘটনার প্রতিবাদে মঙ্গলবার সকালে তারা হাসপাতালের পরিচালকের কার্যালয় ঘেরাও করে ২৪ ঘন্টার মধ্যে পুলিশ বক্স স্থাপন করাসহ ৫ দফা দাবি সম্বলিত স্মারকলিপি দেন। অপরদিকে দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত অনির্দিষ্টকালের জন্য কর্মবিরতি শুরু করেন।

ইন্টার্ণ চিকিৎসক পরিষদের সাধারণ সম্পাদক ডা. আবরার লাবিব জিসান বলেন, ‘মঙ্গলবার সকালের ঘটনার পর থেকে আমরা চরম নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছি। ফলে চিকিৎসকদের নিরাপত্তার দাবি জানিয়ে আমরা অনির্দিষ্টকালের জন্য কর্মবিরতি শুরু করেছি।’

রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পরিচালক ডা. অজয় কুমার রায় বলেন, ইন্টার্ণ চিকিৎসকদের সাথে কথা বলেছি। তাদের চিকিৎসা উপযোগী পরিবেশ দেয়া না হলে তাদের ভালো চিকিৎসা আশা করা যায়না।

ইন্টার্ণদের কর্মবিরতির কারণে রোগীদের সেবা দিতে কিছুটা প্রভাব পড়বে স্বীকার করে তিনি বলেছেন, বর্তমানে হাসপাতালে সেবা পাওয়া যাবে তবে কোনো কোনো ক্ষেত্রে কাঙ্খিত সেবা পাওয়া যাবে না।

ঘটনা তদন্তে ৫ সদস্য বিশিষ্ট তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন পরিচালক।

এইচএ/রাতদিন

লাইক দিয়ে সাথে থাকুন