সৈয়দপুরে স্বামী-স্ত্রীকে গলাকেটে হত্যা

নীলফামারীর সৈয়দপুরে নজরুল ইসলাম (৫৬) ও সালমা খাতুন (৪৫) নামের এক দম্পতিকে গলাকেটে ও কুপিয়ে হত্যা করয়েছে দৃবৃত্তরা।

এসময় মো. আব্দুর রাজ্জাক (৩৫) নামের এক নৈশ প্রহরী মারাত্নক আহত হয়েছেন।

উপজেলার খাতামধুপুর ইউনিয়নের মধুপুর (বালাপাড়া) গ্রামে একটি গবাদিপশুর খামারে শনিবার, ২৬ জানুয়ারি রাতের কোনো এক সময়ে এ হত্যাকান্ড ঘটানো হয় ঘটে।

এ ঘটনায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ছয়জনকে আটক করেছে পুলিশ। তবে কি কারণে এ হত্যাকান্ড তা তাৎক্ষনিকভাবে জানাতে পারেনি আইনশৃংখলা বাহিনী।

জানা গেছে, সৈয়দপুর শহরের বাঙ্গালীপুর নিজপাড়া এলাকার বাসিন্দা পানি উন্নয়ন বোর্ডের অবসরপ্রাপ্ত কর্মচারী নজরুল ইসলাম ও তাঁর দ্বিতীয় স্ত্রী সালমা খাতুন (৪৫) কয়েকদিন আগে খামারটি দেখাশোনার জন্য যান।

সোহেল রানা হাঁস-মুরগী, ভেঁড়া ও গরু পালণের জন্য জমি ভাড়া নিয়ে খামারটি গড়ে তুলেছেন।

শনিবার রাতে দৃবৃত্তরা ওই খামারে প্রবেশ করে ধারালো অস্ত্র দিয়ে গলা কেটে ও এলোপাতাড়ি কুপিয়ে হত্যা করে ওই দম্পতিকে। এসময় খামারের নৈশপ্রহরী রাজ্জাককেও গলায় ও মুখে কুপিয়ে মারাত্মক জখম করা হয়।

সকালে আসা কাজের মেয়ে ওই দম্পতির মরদেহ খামারের ঘরের সামনে পড়ে থাকতে দেখেন। পরে তার আর্তচিৎকারে এলাকার লোকজন সেখানে ছুটে আসেন।

আহত নৈশপ্রহরী আব্দুর রাজ্জাক। ছবি : রাতদিন.নিউজ

একই জায়গায় থেকে গুরুতর আহত আব্দুর রাজ্জাককে উদ্ধার করে প্রথমে তারাগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এবং পরে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়।

খবরে পেয়ে ঘটনাস্থলে সৈয়দপুর থানা পুলিশ, অপরাধ তদন্ত বিভাগ (সিআইডি), পুলিশ ব্যুরো তদন্ত বিভাগসহ (পিবিআই) অন্যান্য সংস্থার লোকজন যান ঘটনাস্থলে। সেখান থেকে উদ্ধার করা হয় নানা আলামত। পরে মরদেহ দুটি পাঠানো হয় নীলফামারীর মর্গে।

নিহত দম্পতির ছেলে সোহেল রানা জানান, প্রায় দুই বছর আগে জনৈক হাজী আবু আসলামের কাছে ৫ বছরের জন্য জমি লিজ নিয়ে খামারটি তিনি গড়ে তুলেছেন। শুরু থেকে নৈশপ্রহরী ও কেয়ারটেকার খামারটি পরিচালনা করছিল। তবে বেশ কিছুদিন থেকে তার বাবা মাঝে মধ্যে গিয়ে সেখানে থাকতেন।

‘বাবা-মায়ের সঙ্গে কারো কোনো দ্ব›দ্ব ছিলনা’ উল্লেখ করে নিহতের ছেলে বলেন, ‘হত্যার রহস্য উদ্ঘাটনসহ জড়িতদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি চাই’।

পুলিশ জানায়, হত্যাকান্ডের বিষয়ে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য জমির মালিক আবু আসলামসহ ছয়জনকে আটক করা হয়েছে। তবে এ বিষয়ে আহত নৈশপ্রহরী গুরুত্বপূর্ণ তথ্য দিয়েছেন বলে পটুলিশের একটি সূতে জানিয়েছে।

সৈয়দপুর থানার ওসি মো. শাহাজাহান পাশা বলেন, ‘দম্পতি হত্যাকান্ডের বিষয়ে অনেক গুরুত্বপূর্ণ মিলেছে। আশা করি দ্রæত ঘটনার রহস্য উদ্ঘাটন হবে’।

এ হত্যাকান্ডের খবর পেয়ে রংপুর বিভাগীয় কমিশনার মোহাম্মদ জয়নুল বারী, নীলফামারীর জেলা প্রশাসক নাজিয়া শিরিন, সৈয়দপুর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মো. মোখছেদুল মোমিন, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এস এম গোলাম কিবরিয়া, সৈয়দপুর সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার অশোক কুমার পাল ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।

এইচএ/২৭.০১.১৯

লাইক দিয়ে সাথে থাকুন