ওসি দিচ্ছেন এসএসসি!

নীলফামারীর ডিমলা থানার ওসি তিনি। ১৯৮৭ সালে পুলিশের কনস্টেবল পদে চাকুরিতে যোগ দিয়েছিলেন। ধাপে ধাপে পদোন্নতি পেয়ে হয়েছেন ওসি। তিনি মফিজ উদ্দিন শেখ।

সেই ওসি এবার বাংলাদেশ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিনে অনুষ্ঠিত এসএসসি পরীক্ষায় অংশ নিচ্ছেন। গত শুক্রবার, ২২ ফেব্রুয়ারি তিনি অংশ নিয়েছেন বাংলা দ্বিতীয় পত্র পরীক্ষায়। ডিমলার আলহাজ্ব মোবারক হোসেন উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্র থেকে পরীক্ষা দিচ্ছেন তিনি ।

ওইদিন পরীক্ষা চলাকালে ওসি যে কক্ষে বসে পরীক্ষা দিচ্ছেন সাংবাদিকরা সেই কক্ষে গিয়ে ছবি তুলতে চাইলে মফিজ উদ্দিন শেখ মুখ ঘুরিয়ে বসেন।

জানা গেছে, ওই ওসি জলঢাকা আলহাজ্ব মোবারক হোসেন উচ্চ বিদ্যালয়ে উন্মুক্ত বিদ্যালয়ের অধিনে ২০১৭ সালে নবম শ্রেনীতে ভর্তি হন। সেই হিসাবে গত শুক্রবার অনুষ্ঠিত ২য় সেমিস্টারের বাংলা ২য় পত্র পরীক্ষায় অংশ নেন তিনি।

জলঢাকা আলহাজ্ব মোবারক হোসেন উচ্চ বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক রোকনুজ্জামান চৌধুরী ওসি মফিজ উদ্দিনের পরীক্ষায় অংশ নেয়ার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

ডিমলা থানার ওসি (তদন্ত) হিসেবে মফিজ উদ্দিন শেখ ২০১৭ সালের ১৭ মার্চ যোগদান করেন। পরে ২০১৮ সালের ২০ মে তিনি একই থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) হিসেবে দায়িত্ব গ্রহন করেন।

পুলিশ সূত্র জানায়, মফিজ উদ্দিন শেখ নিজেকে অনার্স-মাস্টার্স পাশ দাবি করে সেই সনদপত্র দিয়ে পুলিশ বিভাগে পদোন্নতি নিয়েছেন। এর আগে ৮ম শ্রেনী পাশ সনদপত্র দিয়ে পুলিশ বিভাগে যোগদান করেছিলেন।

এ বিষয়ে ওসি মফিজ উদ্দিন শেখের মন্তব্য জানতে চাইলে সংবাদমাধ্যমকে তিনি বলেন, ‘মানুষের লেখাপড়ার কোনো বয়সসীমা নেই। আগের শিক্ষাগত যোগ্যতা দিয়ে পদোন্নতি নিয়েছি। এখন ব্যক্তিগত ইচ্ছায় এসএসসি দিচ্ছি।’

‘মানুষ ডাবল এমএ পাস করে না? এতে অসুবিধা কী?’-প্রশ্ন করেন ওসি।

নীলফামারীর পুলিশ সুপার এ প্রসঙ্গে বলেন, ‘ওসির পরীক্ষা দেয়ার বিষয়টিকে পজেটিভ হিসেবে দেখা উচিত।’

এইচএ/রাতদিন

লাইক দিয়ে সাথে থাকুন